লিঙ্গায়েত ধর্ম

লিঙ্গায়েত ধর্ম হল ভারতের শৈব ধর্মীয় সম্প্রদায়।[3][4][5][web 1] প্রথম দিকে এই মতবাদ বীরশৈব মতবাদ নামে পরিচিত ছিল। খ্রিস্টীয় দ্বাদশ শতাব্দী থেকে এই সম্প্রদায়ের অনুগামীরা ‘লিঙ্গায়েত’ নামে অভিহিত হতে থাকে। ‘লিঙ্গায়েত ধর্ম’ ও ‘বীরশৈবধর্ম’ শব্দ দু’টি বর্তমানে সমার্থক।[note 1] কিন্তু ‘বীরশৈবধর্ম’ শব্দটি বৃহত্তর ‘বীরশৈব দর্শন’ অর্থেও প্রযুক্ত হয়, যা লিঙ্গায়েত ধর্মেরও পূর্ববর্তী;[6] আবার এই শব্দটিই অধুনা ‘লিঙ্গায়েত’ নামে পরিচিত ঐতিহাসিক সম্প্রদায়[7] এবং বৈদিক প্রভাবান্বিত আধুনিক একটি লিঙ্গায়েত (উপ)সম্প্রদায় অর্থেও ব্যবহৃত হয়ে থাকে।[web 2][note 2]

লিঙ্গায়েত ধর্ম
বীরশৈবধর্ম
বসব, দ্বাদশ শতাব্দীর রাষ্ট্রনীতিবিদ, দার্শনিক, কবি ও লিঙ্গায়েত সন্ত
প্রতিষ্ঠাতা
বসব (১১৩১–১১৬৭)
উল্লেখযোগ্য জনসংখ্যার অঞ্চল
কর্ণাটক১৭%[1]
মহারাষ্ট্র৬%[2]
ধর্ম
হিন্দুধর্ম
(শৈব সম্প্রদায়)
ধর্মগ্রন্থ
বচন সাহিত্য  করণ হাসুগে  বাসবপুরাণ  শূন্যসম্পদনে  মন্ত্রগোপ্য
ভাষা
কন্নড়
সম্পর্কিত জাতিগত গোষ্ঠী
কন্নড়

অধুনা কর্ণাটক অঞ্চলের দ্বাদশ শতাব্দীর দার্শনিক ও রাষ্ট্রনীতিবিদ বসব[8] লিঙ্গায়েত ধর্ম প্রতিষ্ঠা করেন অথবা এই ধর্মকে পুনরুজ্জীবিত করে তোলেন।[note 2] ‘লিঙ্গায়েত ধর্ম’ বলতে সমগ্র লিঙ্গায়েত সম্প্রদায়কেও বোঝায়, আবার বসবের মৌলিক চিন্তাধার প্রতি উৎসর্গিতপ্রাণ একটি সমসাময়িক (উপ)সম্প্রদায়কে, এবং এই সম্প্রদায়ের অন্তর্গত পৃথক ধর্মবিশ্বাস হিসেবে স্বীকৃতিকামী একটি আন্দোলনকেও বোঝায়। বিজয়নগর সাম্রাজ্যের যুগে (খ্রিস্টীয় চতুর্দশ-অষ্টাদশ শতাব্দী) লিঙ্গায়েত পণ্ডিতেরা উত্তর কর্ণাটক অঞ্চলে সমৃদ্ধিশালী হয়ে উঠেছিলেন। একবিংশ শতাব্দীকে কোনও কোনও লিঙ্গায়েত হিন্দুধর্ম ও বীরশৈবধর্ম থেকে পৃথক এক ধর্মের আইনগত স্বীকৃতি দাবি করেছেন।[5][9][web 1][note 3] ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস-শাসিত কর্ণাটক সরকারের যুগে সেই দাবি রাজনৈতিক সমর্থন অর্জন করলেও অন্যেরা তার বিরোধিতা করে।[5][web 3][web 2]

লিঙ্গায়েত ধর্মকে সাধারণভাবে একটি হিন্দু সম্প্রদায়ই মনে করা হয়।[10][web 1][note 4] কারণ লিঙ্গায়েতদের ধর্মবিশ্বাসে অনেক হিন্দু ধ্যানধারণার উপাদান বিদ্যমান।[9][note 5] লিঙ্গায়েতদের পূজা সর্বজনীন ঈশ্বর রূপে শিবকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠিত হয় এবং সেই পূজা করা হয় ‘ইষ্টলিঙ্গ’-এর আকারে।[3][5][note 6] লিঙ্গায়েতরা বিশিষ্টাদ্বৈতবাদী। এই মতবাদের দার্শনিক ভিত্তিটির সঙ্গে একাদশ-দ্বাদশ শতাব্দীর দক্ষিণ ভারতীয় দার্শনিক রামানুজের দর্শনের মিল পাওয়া যায়।[web 1] লিঙ্গায়েতরা জাতিভেদ প্রথা সহ সব ধরনের সামাজিক বৈষম্যের বিরোধী।[11]

বর্তমান যুগে লিঙ্গায়েত ধর্ম দক্ষিণ ভারতে, বিশেষত কর্ণাটক রাজ্যে প্রভাবশালী।[5][12] লিঙ্গায়েতরা তাদের ধর্মগুরুদের জন্মজয়ন্তী পালনের পাশাপাশি শিবরাত্রিগণেশচতুর্থীর মতো হিন্দু উৎসবও পালন করে।[13][14][15] লিঙ্গায়েতদের নিজস্ব তীর্থস্থান, মন্দির, পূণ্যস্থান ও ধর্মীয় কবিতাও আছে, যার সবই শিবকেন্দ্রিক।[16] বর্তমানে লিঙ্গায়েত, শৈব সিদ্ধান্ত মতানুগামী, নাথ, পাশুপত, কাপালিক ও অন্যান্যদের নিয়ে শৈব সম্প্রদায় গঠিত।[web 4][note 7]

পাদটীকা

  1. Roshen Dalal (2010): "The linga is worshipped by all Shaivites, but it is the special emblem of the Lingayats or Virashaivas, a Shaivite sect."[3]
  2. For an overview of the Shaiva Traditions, see Flood, Gavin, "The Śaiva Traditions", in: Flood (2003), pp. 200-228. For an overview that concentrates on the Tantric forms of Śaivism, see Alexis Sanderson's magisterial survey article Śaivism and the Tantric Traditions, pp.660--704 in The World's Religions, edited by Stephen Sutherland, Leslie Houlden, Peter Clarke and Friedhelm Hardy, London: Routledge, 1988.

তথ্যসূত্র

  1. "CM Devendra Fadnavis to get demand for Lingayat quota examined by state panel"The Times of India
  2. "CM Devendra Fadnavis to get demand for Lingayat quota examined by state panel"The Times of India
  3. Dalal 2010, পৃ. 208-209।
  4. Schouten 1995, পৃ. 6।
  5. Fisher, Elaine M. (আগস্ট ২০১৯)। Copp, Paul; Wedemeyer, Christian K., সম্পাদকগণ। "The Tangled Roots of Vīraśaivism: On the Vīramāheśvara Textual Culture of Srisailam"। History of ReligionsUniversity of Chicago Press for the University of Chicago Divinity School59 (1): 1–37। আইএসএসএন 0018-2710এলসিসিএন 64001081এসটুসিআইডি 202376600ওসিএলসি 299661763জেস্টোর 00182710ডিওআই:10.1086/703521
  6. Michael 1992, পৃ. 18, note 1।
  7. Schouten 1995, পৃ. 71।
  8. Ishwaran 1981, পৃ. 76-78।
  9. Ramanujan 1973, পৃ. 175।
  10. Levinson ও Christensen 2002, পৃ. 475।
  11. Schouten 1995, পৃ. 52-56।
  12. Gall ও Hobby 2009, পৃ. 567–570।
  13. M.N. Srinivas (১৯৯৫)। Social Change in Modern India। Orient Blackswan। পৃষ্ঠা 157–158। আইএসবিএন 978-81-250-0422-6।
  14. Wolf, Herbert C. (১৯৭৮)। "The Linga as Center: A Study in Religious Phenomenology"। Journal of the American Academy of Religion। Oxford University Press। XLVI (3): 369–388। ডিওআই:10.1093/jaarel/xlvi.3.369

গ্রন্থপঞ্জি

মুদ্রিত উৎসসূত্র

  • Ahmmad, Aziz; Ishwaran, Karigoudar (১৯৭৩), Contributions to Asian Studies, Brill Academic
  • Aitken, Bill (১৯৯৯), Divining the Deccan, Oxford University Press, আইএসবিএন 978-0-19-564711-2
  • Bäumer, Bettina (২০১০), Bhima Bhoi, Verses from the Void: Mystic Poetry of an Oriya Saint, Manohar Publishers, আইএসবিএন 978-81-7304-813-5
  • Bairy, Ramesh (২০১৩), Being Brahmin, Being Modern: Exploring the Lives of Caste Today, Routledge
  • Michael, R. Blake (১৯৯২), The Origins of Vīraśaiva Sects: A Typological Analysis of Ritual and Associational Patterns in the Śūnyasaṃpādane, Motilal Banarsidass, আইএসবিএন 978-81-208-0776-1
  • Bunce, Fredrick (২০১০), Hindu deities, demi-gods, godlings, demons, and heroes, আইএসবিএন 9788124601457
  • Cordwell, Justine M.; Schwarz, Ronald A. (১৯৭৯), The fabrics of culture: the anthropology of clothing and adornment, Walter de Gruyter, আইএসবিএন 978-3-11-163152-3
  • Curta, Florin; Holt, Andrew (২০১৬), Great Events in Religion: An Encyclopedia of Pivotal Events in Religious History [3 volumes] (ইংরেজি ভাষায়), ABC-CLIO, আইএসবিএন 9781610695664
  • Dalal, Roshen (২০১০), The Religions of India: A Concise Guide to Nine Major Faiths, Penguin Books, আইএসবিএন 978-0-14-341517-6
  • Das, Chittaranjan (১৯৯৪), Bhakta Charana Das (Medieval Oriya Writer), Sahitya Akademi, আইএসবিএন 978-81-7201-716-3
  • Das, S.K. (২০০৫), A History of Indian Literature, 500–1399: From Courtly to the Popular, Sahitya Akademi, আইএসবিএন 978-8126021710
  • Gall, Timothy L.; Hobby, Jeneen (২০০৯), Worldmark Encyclopedia of Cultures and Daily Life, Gale, আইএসবিএন 978-1-4144-4892-3
  • Ikegame, Aya (২০১৩), Princely India Re-imagined: A Historical Anthropology of Mysore from 1799 to the present, Routledge, আইএসবিএন 978-1-136-23909-0
  • Ishwaran, K. (১৯৮০), "Bhakti, Tradition and Modernization: The Case of "Lingayatism"", Journal of Asian and African Studies, Brill Academic, 15 (1–2): 72–76, এসটুসিআইডি 220929180, ডিওআই:10.1177/002190968001500106
  • Ishwaran, Karigoudar (১৯৮১), "Bhakti tradition and modernization: the case of Lingayatism", Lele, Jayant, Lingayat Religion - Tradition and Modernity in Bhakti Movements, Brill Archive, আইএসবিএন 9004063706
  • Ishwaran, Karigoudar (১৯৮৩), Religion and society among the Lingayats of South India, E.J. Brill, আইএসবিএন 978-90-04-06919-0
  • Klostermaier, Klaus (২০১০), A Survey of Hinduism, SUNY Press
  • Levinson, David; Christensen, Karen (২০০২), Encyclopedia of Modern Asia, Gale, আইএসবিএন 978-0-684-80617-4
  • Malik, Malti (১৯৪৩), History of India, Saraswati House Pvt Ltd, আইএসবিএন 9788173354984
  • Mangaldas, Aditi; Vaidyanathan, Nirupama (২০১৪), "Aditi Mangaldas: Interviewed by Nirupama Vaidyanathan", Katrak, Ketu H.; Ratnam, Anita, Voyages of body and soul: selected female icons of India and beyond, Newcastle upon Tyne: Cambridge Scholars Publishing, পৃষ্ঠা 50–52
  • McCormack, William (১৯৬৩), "Lingayats as a Sect", The Journal of the Royal Anthropological Institute of Great Britain and Ireland, 93 (1): 59–71, জেস্টোর 2844333, ডিওআই:10.2307/2844333
  • Narasimhacharya, R. (১৯৮৮), History of Kannada Literatureবিনামূল্যে নিবন্ধন প্রয়োজন, New Delhi: Penguin Books, আইএসবিএন 81-206-0303-6
  • Olson, Carl (২০০৭), The Many Colors of Hinduism: A Thematic-historical Introduction, Rutgers University Press, আইএসবিএন 978-0813540689
  • Prasad, Leela (২০১২), Poetics of Conduct: Oral Narrative and Moral Being in a South Indian Town, Columbia University Press, আইএসবিএন 978-0231139212
  • Rice, Edward (১৯৮২), A History of Kannada Literature, Asian Educational Services, আইএসবিএন 978-8120600638
  • Sastri, Nilakanta K.A. (২০০২) [1955], A history of South India from prehistoric times to the fall of Vijayanagar, Indian Branch, Oxford University Press, আইএসবিএন 0-19-560686-8
  • Shiva Prakash, H.S. (১৯৯৭), "Kannada", Ayyappappanikkar, Medieval Indian Literature: Surveys and selections, Sahitya Akademi, আইএসবিএন 9788126003655
  • Ramanujan, A. K. (১৯৭৩), Speaking of Śiva, Penguin, আইএসবিএন 978-0-14-044270-0
  • Rao, Velchuri; Roghair, Gene (২০১৪), Siva's Warriors: The Basava Purana of Palkuriki Somanatha, Princeton University Press, আইএসবিএন 978-0691604879
  • Schouten, Jan Peter (১৯৯৫), Revolution of the Mystics: On the Social Aspects of Vīraśaivism, Motilal Banarsidass, আইএসবিএন 978-8120812383
  • Schuhmacher, Stephan (১৯৯৪), The Encyclopedia of Eastern Philosophy and Religion: Buddhism, Hinduism, Taoism, Zen, Shambhala, আইএসবিএন 978-0-87773-980-7
  • Sinha, Surajit; Saraswati, Baidyanath (১৯৭৮), Ascetics of Kashi: An Anthropological Exploration (ইংরেজি ভাষায়), N.K. Bose Memorial Foundation
  • Vasavi, R. (১৯৯৯), Harbingers of Rain: Land and Life in South India, Oxford University Press, আইএসবিএন 978-0-19-564421-0

ওয়েব-সূত্র

  1. Lingayat: Hindu sect, Encyclopedia Britannica (2015)
  2. Gowda, Chandan (২৩ মার্চ ২০১৮)। "Terms of separation"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0971-751X। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৮
  3. Business Standard (20 March 2018), Karnataka Lingayat religion row: Congress' decision a blow for BJP? updates
  4. shaivam.org, Shaivam
  5. Amazon.com, Siddhanta Shikhamani: The one hundred one sthala doctrine. A concise composition, by Linga Raju. Kindle Edition
  6. cultural.maharashtra.gov। "LINGAYATS"
  7. Basava Encyclopedia Britannica (2012)
  8. "A medieval poet bedevils India's most powerful political party"The Economist। ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭।
  9. "Karnataka recommends minority status for Lingayat community: Will it impact Congress, BJP in upcoming polls?"Financial Express। ২০ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  10. Why Lingayat-Veerashaiva feud is bad news for BJP in Karnataka, India Today, Aravind Gowda, (24 August 2017)
  11. Ataulla, Naheed (10 October 2013), Lingayats renew demand for separate religion. The Times of India. Retrieve don 28 November 2015.
  12. "How Religious Minority Status to Lingayats would Impact Karnataka Elections 2018"Kalaburagi Political News। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ আগস্ট ২০২১
  13. ‘Veerashaivas are Lingayats and they are Hindus, no question of separate religion’: Yeddyurappa, TNM News Minute (23 July 2017)
  14. Now, government bats for separate religion for Lingayats, The New Indian Express (25 July 2017)
  15. Veerashaivas' campaign gaining momentum, The Hindu (11 December 2000)
  16. "Will welcome it if CM contests from north Karnataka, says Yeddyurappa"The Hindu। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  17. Patil, Vijaykumar (৭ এপ্রিল ২০১৫)। "Lingayat is an independent religion: Seer"The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯
  18. Gauri Lankesh (5 September 2017), Making Sense of the Lingayat vs Veerashaiva Debate

বহিঃসংযোগ

টেমপ্লেট:Lingayatism topics

This article is issued from Wikipedia. The text is licensed under Creative Commons - Attribution - Sharealike. Additional terms may apply for the media files.